পুরোহিত ডেকে নিয়ম মেনে “বট-পাকুড়ের” শুভপরিণয়, আমন্ত্রিত দুই হাজার

13

মলয় দে(নদীয়া):-পাত্র-পাত্রী দুজনেরই বয়স বারো। দুজনেরই পিতা সমর মন্ডল,গোত্র আল্যমান।এদিন প্রায় দু’হাজার জন আমন্ত্রিত পাত পেতে খেয়ে আশীর্বাদ করলেন এই নবদম্পতিকে। একটু অবাক হচ্ছেন তো? তাহলে ঘটনাটি একটু খুলেই বলা যাক, আজ থেকে 12 বছর আগে সমরবাবু শান্তিপুর স্টিমার ঘাট অঞ্চলে গঙ্গা পাড়ে রোপণ করেছিলেন এই দুটি বৃক্ষ, মনে ভেবেছিলেন উপযুক্ত বয়স হলে দেবেন তাঁদের শুভ পরিণয়। পেশায় তিনি ব্যাংকের কর্মী হলেও, জানা যায় চাষআবাদ প্রিয় সমর বাবু গুরুজনদের কাছ থেকে শুনে ছিলেন ,75 বছর আগে পাশের পাড়ার এ ধরনের একটি আয়োজন l আর তাতেই তিনি অনুপ্রাণিত হয়ে আয়োজন করেছিলেন এ ধরণের অনুষ্ঠানের l সমরবাবুর একমাত্র কন্যা সৌমি প্রথম বর্ষের বাংলা বিভাগের ছাত্রী গাছ দুটির নাম দিয়েছে “ঈশান-ঈশানি”। প্রায় 7 দিন আগে থেকেই দূর-দূরান্তের অতিথিদের আমন্ত্রনের কাজ শুরু করেছিলো সৌমি। মণ্ডল পরিবারের রীতি অনুযায়ী গায়ে হলুদ, জলসাধা, সাত পাকে ঘোরা, সম্প্রদান, সবটাই হয়েছে বাজনা ও সানাই সহযোগে রীতিমতো ঘটা করে। তবে ভুঁড়িভোজের আয়োজন ছিল বিয়ে-বৌভাত একত্রে l তবে একদিক থেকে বলা যেতেই পারে এধরণের অনুষ্ঠান যা কিনা সমাজের প্রতি সবুজায়নের বার্তা বহন করে l কারণ বৃক্ষ রোপনই হল সুন্দর পৃথিবী গড়ার একটি দিক l

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here