“জনতার কার্ফু”তে আজ বোঝা গেল ভারতবাসীর”বৈচিত্রের মধ্যে ঐক্য”

6

সত্যি আজ বোঝা গেল “বৈচিত্রের মধ্যে ঐক্য”এটাই আমাদের ভারতবর্ষ l শুধু নদীয়া, 24 পরগনা নয়, বাংলা ছাড়িয়ে পুরো ভারতবর্ষে আজ কার্যত গৃহবন্দী। আজ প্রতীকী গৃহবন্দি হলেও, রাজ্য সরকারের বিভিন্ন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী কাল বিকেল 5 টা থেকে আগামী 27 শে মার্চ রাত 12 টা পর্যন্ত এভাবেই থাকতে হবে, তা প্রায় এক প্রকার নিশ্চিত হয়েছে প্রত্যেকেই। অত্যাবশ্যকীয় কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ পরিষেবা ছাড়া বন্ধ থাকবে প্রায় সব।
সংসারের প্রয়োজনের, ঊর্ধ্বেও “আমি”কেন্দ্রিক অসম প্রতিযোগিতার অত্যন্ত ব্যস্ততম টাকা উৎপাদনের মানুষটিকেও আজ সারাদিন পরিবারের বন্ধুর মতো সময় দিতে দেখে সবচেয়ে খুশি কনিষ্ঠতম সদস্য। আজ সকলে হয়ে উঠেছেন মানবিক। বিপদসংকুল এই সময়ে যৌক্তিকতার ঊর্ধ্বে বেশ কিছু পরিবার প্রধানমন্ত্রীর জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ অনুযায়ী বাজালেন শঙ্খ, কাঁসর, ঘন্টা, থালা। বন্যা, ক্ষরা, প্রাকৃতিক দুর্যোগ হোক বা জাতীয় বিপর্যয় সকলে সকলের প্রতি সৌভ্রাতৃত্ব, মঙ্গল কামনায় যৌক্তিকতা প্রয়োজন হয় না, দরকার আন্তরিকতা ভালোবাসা। এ রকম দু-একটি পরিবার থেকে জানা গেল, শহীদের মৃত্যুর পর, মোমবাতি মিছিল, নীরবতা পালন, শোকসভা, স্মৃতিচারণ বা নানা সামাজিক ধর্মীয় রীতিনীতির পেছনে একটাই কারণ, সব ভেদাভেদ ভুলে একাত্মকরন। কাঁটায় কাঁটায় তখন পাঁচটা , বেজে উঠলো একসঙ্গে ঘরে ঘরে কাঁসর, ঘন্টা l যার মাধ্যমে অভিনন্দন জানানো হয় যারা নিজেদের জীবন বাজি রেখে করোনা মোকাবিলায় একনাগাড়ে কাজ করে যাচ্ছেন l

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here